হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে, আজ (বুধবার) থেকে চেক ডিজঅনার সব মামলা যে পর্যায়ে আছে, সে পর্যায়ে স্থগিত থাকবে। এ ছাড়া ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক সব ধরনের ঋণের বিপরীতে ইনস্যুরেন্স কাভারেজ থাকতে হবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংককে নির্দেশনা এবং জাতীয় সংসদকে আইন সংশোধনের পরামর্শ দিয়েছেন আদালত। কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান যদি চেক ডিজঅনার মামলা করে, তা আমলে না নিতে নিম্ন আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষের আইনজীবী সাইফুজ্জামান তুহিন। তিনি বলেন, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান ঋণ আদায়ের জন্য শুধু ২০০৩ সালের অর্থঋণ আইনে বর্ণিত উপায়ে অর্থঋণ আদালতে মামলা করতে পারবে।

ব্র্যাক ব্যাংকের এক মামলায় মো. আলী নামের এক ব্যক্তির ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং ২ লাখ ৯৫ হাজার ৯০৪ টাকা অর্থদণ্ড হয়। ওই সাজার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন তিনি। তাঁর আপিল মঞ্জুর করে আগামী ১০ দিনের মধ্যে জামানতের ৫০ শতাংশ টাকা আপিলকারীকে ফেরত দিতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আদালতে মো. আলীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন আবদুল্লাহ আল বাকী। ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সাইফুজ্জামান তুহিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আশেক মমিন।