বাদীর আইনজীবী সৌরভ চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, বাদীর বক্তব্য গ্রহণ করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে নিতে মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কবির হোসেনকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবরণে বলা হয়, বাদীর ভাই মালয়েশিয়াপ্রবাসী রফিকুল হায়দার করোনা মহামারির সময় চাকরি হারিয়ে দেশে আসেন। পরে তিনি মিরসরাই মঘাদিয়া এলাকায় ‘হায়দার ডেইরি ফার্ম’ নামে একটি গরুর খামার প্রতিষ্ঠা করেন। সম্প্রতি স্থানীয় কিশোর গ্যাং তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তাঁর কাছে। ৬ নভেম্বর বিকেলে খামারে চাঁদা চাইতে গেলে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে মালিক পক্ষের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। চাঁদা না দেওয়ায় অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হায়দারকে প্রাণনাশের হুমকি দেন।

চাঁদা না দেওয়ায় ১৭ নভেম্বর সন্ধ্যার দিকে হায়দারের ওপর সমিতিরহাট বাবুলের চা–দোকানের সামনে প্রকাশ্যে রড, রামদা নিয়ে হামলা করে কিশোর গ্যাং। বাজারের লোকজন হায়দারকে উদ্ধারের সহায়তায় এগিয়ে এলে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা চলে যান।
মামলার বাদী মো. ফারুক প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার পর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ নেয়নি। তাই আদালতে মামলা করেন। আদালত মামলা নিতে নির্দেশ দেন থানাকে।