প্রধান অতিথির বক্তৃতায় হাসানুল হক বলেন, বিএনপি, জামায়াত ক্ষমতা দখলের জন্য যে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে, অস্বাভাবিক-অসাংবিধানিক সরকার আনার যে অপচেষ্টা চলছে, তা প্রতিহত করতে হলে আওয়ামী লীগকে একলা চলো নীতি পরিহার করতে হবে। ১৪ দলকে কেন্দ্র থেকে মাঠপর্যায়ে সক্রিয় থাকার পাশাপাশি অন্যান্য অসাম্প্রদায়িক প্রগতিশীল শক্তিকে ১৪ দলের সঙ্গে যুক্ত করার উদ্যোগ নিতে হবে।

হাসানুল হক আরও বলেন, বাংলাদেশে সমাজ, সংস্কৃতি, রাজনীতি, অর্থনীতি, জনজীবন বিপন্নকারী চার শত্রু মোকাবিলা করাই এখন প্রধান রাজনৈতিক কর্তব্য। এই চার শত্রু হচ্ছে রাষ্ট্রীয় সম্পদ আত্মসাৎকারী; জনগণের প্রাপ্য ও হক চুরি করা দুর্নীতিবাজ লুটেরা গোষ্ঠী; ব্যবসায়ী-বাজার সিন্ডিকেট, ক্ষমতাবাজ, দলবাজ, মাস্তান ও গুন্ডা গোষ্ঠী এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অস্তিত্বের ভিত্তি অস্বীকারকারী, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাবিরোধী গোষ্ঠী এবং তাদের রাজনৈতিক সঙ্গী বিএনপি, জামায়াত, হেফাজত।

হাসানুল হক ইনু বলেন, অসাম্প্রদায়িক প্রগতিশীল শক্তিকে ১৪ দলের সঙ্গে যুক্ত করার উদ্যোগ নিতে হবে।

হাসানুল হক সরকারকে উদ্দেশ করে বলেন, দেশে উন্নয়ন ও শান্তির ধারা বজায় রাখতে হলে কোনো অজুহাত বা নমনীয়তা না দেখিয়ে সরকারকে এ চার শত্রু মোকাবিলা করতে হবে। এ পরিস্থিতিতে মুক্তিযুদ্ধ, গণতন্ত্র, প্রগতি, অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী ছোট-বড় সবাইকে অহমিকা ও হীনম্মন্যতা পরিহার করে রাজনৈতিক আদর্শের ওপর শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধভাবে দাঁড়াতে হবে। সাম্প্রদায়িক জঙ্গিবাদী উগ্রবাদীদের মোকাবিলা করতে হলে দুর্নীতিবাজ, লুটেরা, দলবাজ, ক্ষমতাবাজ, বাজার সিন্ডিকেটের হোতাদের ওপর বুলডোজার চালাতে হবে। তাদের মাথার ওপর থেকে রাজনৈতিক, প্রশাসনিক ছাতা সরিয়ে নিতে হবে।

প্রতিনিধি সভায় জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য নাদের চৌধুরী, আবদুল্লাহিল কাইয়ুম ও মোহাম্মদ মোহসীন, জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর্জা মো. আনোয়ারুল হক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জিয়াউল হক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন