ভুক্তভোগী ছাত্রী প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি প্রীতিলতা হলসংলগ্ন এলাকায় বন্ধুর সঙ্গে হাঁটছিলেন। এ সময় পাঁচ তরুণ তাঁদের গতিরোধ করে জেরা করতে থাকে। একপর্যায়ে দুজন কোনো কারণ ছাড়াই তাঁদের মারধর করে।

ওই ছাত্রী আরও বলেন, প্রায় এক ঘণ্টা আটকে রেখে তিনি ও তাঁর বন্ধুকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে ওই তরুণেরা। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাঁদের মানিব্যাগ ও মুঠোফোন কেড়ে নিয়ে তারা চলে যায়। তাদের কথাবার্তা ও পোশাক দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মনে হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুর ২টার দিকে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী লিখিত অভিযোগ দিতে প্রক্টরের কার্যালয়ের আসেন। বেলা সাড়ে ৩টা পর্যন্ত সহপাঠীদের সঙ্গে তিনি প্রক্টর কার্যালয়ে অপেক্ষা করেন। পরে বিকেল ৫টার দিকে তিনি বলেন, অভিযোগের বিষয়টি প্রক্টরকে জানানো হয়েছে। আগামীকাল এ বিষয়ে অভিযোগ জমা দেওয়া হবে।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, বিষয়টি গুরুতর। ওই ছাত্রীর কাছ থেকে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছেন। প্রীতিলতা হলসংলগ্ন এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহের চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনা হবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন