‘পথশিশু ও কুকুর’ নিয়ে টিএসসিতে প্রবেশে মানার ওই বিজ্ঞপ্তির বিষয়ে গতকাল সন্ধ্যায় ফেসবুকে এক পোস্টে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী মীর আরশাদুল হক প্রতিবাদ জানান। তিনি লেখেন, ‘টিএসসির ফটকে লেখা কুকুর আর পথশিশুদের সঙ্গে নিয়ে প্রবেশ নিষেধ। এটা নিয়ম হতেই পারে, তা বলে “কুকুর ও পথশিশু” লেখাটা অসভ্যতা মনে হলো। কেউ বিষয়টা কর্তৃপক্ষের নজরে এনে ব্যবস্থা নিলে ভালো হয়।’ আরশাদুলের পোস্টের পর ওই বিজ্ঞপ্তি নিয়ে সমালোচনা তৈরি হলে টিএসসি কর্তৃপক্ষ সেটি সরিয়ে নেয়।

টিএসসির একাধিক কর্মচারী জানান, ওই বিজ্ঞপ্তি সাঁটানোর সিদ্ধান্ত তাঁদের নয়। টিএসসির প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলামের নির্দেশে বিজ্ঞপ্তিটি সাঁটানো হয়েছিল। পরে কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই তাঁরা সেটি সরিয়ে ফেলেছেন।

জানতে চাইলে টিএসসির প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘পথশিশু ও কুকুর—শব্দ দুটি একসঙ্গে লিখে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে টাইপিং মিসটেক (ছাপার ভুল) হয়েছে। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে আমরা টিএসসিতে পথশিশু ও কুকুর নিয়ে না ঢোকার অনুরোধ জানিয়ে আলাদাভাবে দুটি বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলাম। কিন্তু কর্মচারীরা সেটি বুঝতে না পেরে একটি বিজ্ঞপ্তিতেই “পথশিশু ও কুকুর” উল্লেখ করেছে। বিষয়টি অত্যন্ত দৃষ্টিকটু হওয়ায় পরে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন