দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ রওশন এরশাদ চিকিৎসার জন্য বিদেশে আছেন। গত বুধবার জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ দলের জাতীয় সম্মেলন আহ্বান করেন ও নিজেকে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক করে আট সদস্যের একটি কমিটিরও ঘোষণা দেন। এর পরদিন গতকাল বৃহস্পতিবার রওশন এরশাদকে সরিয়ে দলের চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলের নেতা মনোনীত করে জাতীয় পার্টি।

জাপার চেয়ারম্যান বলেন, ‘রওশন এরশাদ আমাদের শ্রদ্ধার পাত্র, তিনি শ্রদ্ধার আসনেই আছেন। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ, সংসদের অধিবেশনে অংশ নিতে পারছেন না। বিরোধী দলের নেতা হিসেবে ভূমিকা রাখতে পারছেন না।’

জি এম কাদের বলেন, কখনো কখনো রওশন এরশাদকে দিয়ে কিছু মহল এমন কিছু বক্তব্য, বিবৃতি ও বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করছে, যা সার্বিকভাবে দলীয় অবস্থানের বিপক্ষে চলে যাচ্ছে। জাতীয় পার্টির সংসদীয় কমিটির সদস্যরা মনে করছেন, অসুস্থতা ও বয়সের কারণে তিনি বিরোধী দলের নেতার ভূমিকা সঠিকভাবে পালন করতে পারছেন না।

এরশাদের মৃত্যুর পর দলের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে জাপার চেয়ারম্যান হওয়া জি এম কাদের বলেন, ‘কোনো রাজনৈতিক দলকে ক্ষমতাসীন করতে নয়, আমরা দেশের মানুষের ক্ষমতায়নের জন্য রাজনীতি করছি। কারও লেজুড়বৃত্তি করতে জাতীয় পার্টির রাজনীতি নয়। আমরা নিজস্ব স্বকীয়তা নিয়ে রাজনীতির মাঠে আছি।’

জি এম কাদের আরও বলেন, ‘আমরা দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতির পরিবর্তন চাই। আমরা চাই পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও সহনশীল পরিবেশে রাজনৈতিক চর্চা। এখন প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক শক্তিকে শত্রু মনে করা হয়, এটি ঠিক নয়। আমরা সবাই যার যার রাজনীতি করব, কিন্তু সবার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকবে। আবার দেশের স্বার্থে আমরা সব রাজনৈতিক দল যেন এক হয়ে কাজ করতে পারি।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন