বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া অপর দুই আসামি হলেন সোনিয়া মেহজাবিনের স্বামী মাসুকুর রহমান ও ই-অরেঞ্জের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা (সিওও) আমানউল্লাহ চৌধুরী।
ই-অরেঞ্জের মালিকপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতারণামূলকভাবে ১ লাখ গ্রাহকের ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে রাজধানীর গুলশান থানায় একাধিক মামলা হয়েছে। এ ছাড়া ১ কোটি ২০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গত ৭ অক্টোবর সাজ্জাদ ইসলাম নামের এক গ্রাহক হাতিরঝিল থানায় সোনিয়া, তাঁর স্বামী ও আমানউল্লাহর বিরুদ্ধে আরেক মামলা করেন।

হাতিরঝিল থানায় করা মামলায় অভিযোগ করা হয়, ই-অরেঞ্জে বাইকসহ অন্যান্য জিনিসপত্র কেনার জন্য ১ কোটি ২০ লাখ টাকা পরিশোধ করলেও পণ্য না দিয়ে আসামিরা অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।

ই-অরেঞ্জের দুটি ব্যাংক হিসাব খুঁজে পেয়েছে পুলিশ। গত ২০ জুলাইয়ের হিসাব অনুযায়ী, দুটি ব্যাংক হিসাবে ৩ কোটি ১২ লাখ ১৪ হাজার ৩৫৬ টাকা ছিল।
ই-অরেঞ্জের অফিশিয়াল নাম ই-অরেঞ্জ ডট শপ। দুই বছর আগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) থেকে ট্রেড লাইসেন্স নেয় প্রতিষ্ঠানটি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন