default-image

খিলগাঁওয়ের বনশ্রী এলাকায় চলন্ত একটি রিকশার চাকা গর্তে পড়ে গেলে রিকশাটি কাত হয়ে যায়। এ সময় রিকশায় থাকা বোনের কোল থেকে তিন বছর বয়সী ভাই রাস্তায় ছিটকে পড়ে। তখনই বেপরোয়া গতির একটি প্রাইভেট কার শিশুটিকে চাপা দেয়। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

নিহত শিশুটির নাম শেখ মো. ইউসুফ। তার বাবার নাম শহিদুল ইসলাম ও মা ইয়াসমিন।

পুলিশ ও নিহত শিশুর পারিবারিক সূত্র জানায়, আজ বিকেলে ছেলে ইউসুফসহ তিন সন্তান ও এক ভাবিকে নিয়ে ইয়াসমিন ব্যাটারিচালিত রিকশায় করে নন্দীপাড়ায় বাবার বাসা থেকে দক্ষিণ বনশ্রীতে নিজের বাসায় ফিরছিলেন। একপর্যায়ে বনশ্রীর রাস্তায় রিকশার একটি চাকা গর্তে পড়ে গেলে রিকশাটি কাত হয়ে যায়। এতে ১০ বছরের বোন সাবিহার কোলে থাকা ইউসুফ রাস্তায় ছিটকে পড়ে। এ সময় বেপরোয়া গতির একটি প্রাইভেট কার এসে শিশুটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা শিশুটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে তাকে রাত সাড়ে সাতটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

শিশুটির চাচা শেখ মো. রিফাত প্রথম আলোকে বলেন, ইউসুফ ছিল মা-বাবার একমাত্র পুত্রসন্তান। রিকশায় থাকা সবাই কমবেশি আহত হয়েছেন। ইউসুফের বাবা শহিদুল ইসলাম ব্যবসায়ী। তাঁদের বাড়ি বাগেরহাট সদর উপজেলার কান্দাপাড়ায়।

রাতে যোগাযোগ করা হলে খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুকুল আলম প্রথম আলোকে মৃত্যুর তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন