default-image

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতাকে কেন্দ্র করে আলেমদের সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্যের প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন মাদ্রাসার ছাত্ররা। আজ শুক্রবার জুমার নামাজের পর বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর প্রাঙ্গণ থেকে ব্যানার ছাড়া একটি মিছিল বের হয়। সেটি শান্তিনগর পৌঁছালে পুলিশের লাঠিপেটায় মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জুমার নামাজের পরপরই বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেট দিয়ে মাদ্রাসার কয়েক শ ছাত্র-শিক্ষক ভাস্কর্যবিরোধী স্লোগানে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে রাস্তায় নামেন। তাঁরা পুরানা পল্টন মোড়, বিজয়নগর, কাকরাইল হয়ে শান্তিনগর পর্যন্ত যায়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা পুরানা পল্টন মোড়ে পুলিশের ব্যারিকেড সরিয়ে ফেলেন। রাস্তায় তাঁদের সঙ্গে আরও কিছু মুসল্লি যোগ দেন।

মিছিলটি শান্তিনগর এলাকায় কর্ণফুলী গার্ডেন সিটির কাছে গিয়ে মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়।

মিছিলে অংশ নেওয়া আবদুর রহিম নামের একজন জানান, কর্মসূচির শেষ দিকে পুলিশ অতর্কিতে লাঠিপেটা শুরু করে। এতে অন্তত ৩০-৪০ জন আহত হন বলে দাবি করেছেন তিনি।

বিক্ষোভকারীদের দাবি, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নামের একটি সংগঠনের নেতারা সৈয়দ ফয়জুল করিম (ইসলামী আন্দোলনের নায়েবে আমির) ও মামুনুল হককে (বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব) নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন, তাঁদের কুশপুত্তলিকা দাহ করেছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে তাঁরা বায়তুল মোকাররমে মিছিল বের করেন। পুলিশ তাঁদের বাধা দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের মতিঝিল অঞ্চলের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার জাহিদুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, জুমার নামাজের পরপরই একদল উচ্ছৃঙ্খল লোক মসজিদের সামনে থাকা পুলিশের সঙ্গে ঠেলা-ধাক্কা দিয়ে, দুর্ব্যবহার করে পল্টন মোড়ের দিকে আসেন। সেখানে থাকা পুলিশ সদস্যদেরও তাঁরা নাজেহাল করেন।

এরপর নাইটিঙ্গেল মোড়ে থাকা পুলিশ সদস্যদের জবরদস্তি করে সরিয়ে দিয়ে কর্ণফুলী গার্ডেনের সামনে এসে রাস্তা অবরোধ করেন। এ সময় তাঁরা আরও উদ্ধত আচরণ শুরু করলে, তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়।

জাহিদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল থেকে তাঁরা ১৫ জনকে আটক করেছেন। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনায় পুলিশ মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন স্থানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন ইসলামি দল ও সংগঠন বক্তৃতা-বিবৃতি দিচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বারিধারা মাদ্রাসায় ঢাকার শীর্ষস্থানীয় আলেমদের এক জরুরি সভায় হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী সরকারকে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার আহ্বান জানান।

এর আগে রাজধানীর দোলাইরপাড় চৌরাস্তায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের প্রতিবাদে ধূপখোলা মাঠে সমাবেশ করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। সমাবেশে দলের নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করিম রাষ্ট্রের টাকা খরচ করে ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপনের অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে ফিরে আসার আহ্বান জানান।

মন্তব্য করুন