বিজ্ঞাপন

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, আজ রাজধানীতে বছরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে। এর আগে ১৫ মে রাজধানীতে ৪৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছিল। তবে আজ বৃষ্টির সঙ্গে কালবৈশাখীর মতো দমকা হাওয়া বয়ে যায়। বিমানবন্দর এলাকায় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৪৭ কিলোমিটার। তবে তা দুই মিনিটের মতো স্থায়ী ছিল। এরপর থেমে থেমে বৃষ্টির সঙ্গে বাতাস বয়ে যায়।

default-image

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস প্রথম আলোকে বলেন, কাল বুধবারও রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তারপর আগামী কয়েক দিন বৃষ্টি কমে গরম বাড়তে পারে। ২৩ মে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যেটি নিম্নচাপ হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে বৃষ্টিপাতের কারণে রাজধানীর কারওয়ান বাজার, ধানমন্ডি, মিরপুর, পুরান ঢাকাসহ অনেক এলাকায় রাত পর্যন্ত পানি জমে থাকে। এতে স্থানীয় অধিবাসীসহ রাজধানীবাসীর ভোগান্তি বেড়ে যায়। অনেককে বৃষ্টিতে কাকভেজা হয়ে বাড়িতে ফিরতে হয়। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অনেক স্থানে পানি জমে ছিল।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, কাল দেশের দক্ষিণ–পশ্চিম অঞ্চলে দাবদাহ বয়ে যেতে পারে। দেশের অন্যান্য অঞ্চলে দমকা হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। মঙ্গলবার দেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে ৬৭ মিলিমিটার।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন