বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার জেরে তরঙ্গ পরিবহনের দুটি বাস আটক করেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। পরে বাস দুটি ছেড়ে দেয় পুলিশ। মিরাজ হোসেনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রামপুরা থেকে কলেজে যাচ্ছিলেন তিনি। শাহবাগ আসার পর তাঁর কাছে ভাড়া চান চালকের সহযোগী। তালিকার চেয়ে বেশি ভাড়া চাওয়ায় প্রতিবাদ করেন তিনি। এ নিয়ে কথা–কাটাকাটির একপর্যায়ে মিরাজ হোসেনকে মারধর করা হয়।

পুলিশ আরও জানায়, মিরাজ ক্যাম্পাসে গিয়ে সহপাঠীদের বিষয়টি জানান। এতে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সায়েন্স ল্যাব এলাকায় গিয়ে তরঙ্গ প্লাসের দুটি বাস আটক করেন।
নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স ম কাইয়ুম প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে শাহবাগ এলাকায়। তাই ওই শিক্ষার্থীকে শাহবাগ থানায় গিয়ে অভিযোগ দিতে বলেছি। শিক্ষার্থীরা দুটি বাস আটক করেছিলেন। বাস দুটি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন