বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, বাহার মিয়ার গয়না তৈরির কারখানা রয়েছে। তাঁর ছেলে আবদুর রহমান এ কারখানায় গয়নার কারিগর হিসেবে কাজ করতেন।

আবদুর রহমান হত্যার ঘটনায় শামীম, আবির ও ওয়াহেদ নামের তিন তরুণকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তিনজনই আবদুর রহমানের বন্ধু। তাঁরা লালবাগের শহীদনগর ১ নম্বর গলির বাসিন্দা বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, বন্ধুদের নিয়ে কামরাঙ্গীরচর কুড়ার ঘাট এলাকায় একটি মেলায় গিয়েছিলেন আবদুর রহমান। ফেরার পথে মেলা থেকে কেনা একটি খেলনা পিস্তল নিয়ে আবদুর রহমানের সঙ্গে অন্যদের বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে আবদুর রহমানকে ছুরি দিয়ে কয়েকটি আঘাত করেন শামীম। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন