বিজ্ঞাপন

পুলিশের ভাষ্য, গতকাল দিবাগত রাত দুইটা থেকে আড়াইটার দিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা (ডিবি) গুলশান বিভাগ ও খিলক্ষেত থানা পুলিশের সমন্বিত দলের সঙ্গে সশস্ত্র ছিনতাই দলের সদস্যদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে যাওয়ার পথে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে একপর্যায়ে গুলি ছোড়েন। পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলি শেষে ঘটনাস্থল থেকে দুজন দুর্বৃত্তকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তাঁদের মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। আর ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে অক্ষত অবস্থায় গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে সিএনজিচালিত ১টি অটোরিকশা, ১টি বিদেশি পিস্তল, ২টি গুলিভর্তি ১টি ম্যাগাজিন, ১টি ছুরি, ২টি মলম, ১টি গামছা, ৯টি মুঠোফোন, ১৬টি ইয়াবা বড়ি ও ৫ হাজার টাকা উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার দুজনের নাম নয়ন ও ইয়ামিন। তাঁরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, নিহত দুজনের নাম এনামুল ও রাসেল।

ডিবি গুলশান বিভাগের ভাষ্য, গত রাতে তাঁদের একাধিক টিম খিলক্ষেত থানা-পুলিশের সঙ্গে টহল দিচ্ছিল। দিবাগত রাত সোয়া দুইটার দিকে কাওলা থেকে বিশ্বরোডের দিকে সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা যাচ্ছিল। পুলিশ থামার সংকেত দিলে সেটি দ্রুতবেগে ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে পূর্বাচলের দিকে পালিয়ে যাচ্ছিল। ফ্লাইওভারে থাকা পুলিশ সতর্কসংকেত পেয়ে মাইক্রোবাস দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করে। একপর্যায়ে অটোরিকশা থেকে দুই দুর্বৃত্ত নেমে পুলিশের মাইক্রোবাস লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও গুলিবিনিময় হয়। পরে অটোরিকশা থেকে দুজনকে জীবিত অবস্থায় গ্রেপ্তার করা হয়। কিছু দূরে ফ্লাইওভারের ওপর দুজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

পুলিশের ভাষ্য, গ্রেপ্তার দুজন জানিয়েছেন, তাঁরা মূলত অটোরিকশায় যাত্রী তুলে তাঁদের সর্বস্ব ছিনিয়ে নেন। নিহত ও গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা ছিনতাই, ডাকাতিসহ একাধিক মামলার আসামি।

পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার দুজনের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করা হবে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন