দক্ষিণখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মামুনুর রহমান আজ রোববার প্রথম আলোকে বলেন, ১৩ এপ্রিল দক্ষিণখানের আশকোনা এলাকায় রাস্তার পাশে মোটরসাইকেল রেখে বাজার করতে যাচ্ছিলেন এসবির সহকারী উপপরিদর্শক মঞ্জুরুল হক। এ সময় কয়েকজন যুবক তাঁকে বাধা দেন। ওই যুবকেরা সেখানে আড্ডা দিচ্ছিলেন। একপর্যায়ে মঞ্জুরুলকে মারধর করেন তাঁরা। এ ঘটনায় দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা সাত–আটজনকে আসামি করে মামলা করেছেন তিনি।

এজাহারে নাম উল্লেখ করা দুই আসামি হলেন মেহেদী হাসান ওরফে শরিফ (৩২) ও আবদুল আলিম (৩০)। ওসি বলেন, রিমন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার রিমন ছাত্রলীগ করেন বলে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা গেছে। তবে তিনি কোনো পদে নেই বলে ওসি জানান।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন