এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানান হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরের অভ্যন্তরীণ জীবন নিয়ে ১০ জন রোহিঙ্গা আলোকচিত্রীর তোলা ছবি প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে। এসব ছবিতে রোহিঙ্গা শিবিরের অভ্যন্তরীণ জীবন ফুটে উঠেছে। প্রদর্শনীতে স্থান পাওয়া ছবিতে মিয়ানমারে সহিংসতা ও নিপীড়নের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আরও কাছ থেকে দেখার সুযোগ তৈরি করেছে।

প্রদর্শনীটি তত্ত্বাবধান করছেন ডেভিড পালাজন ও আমেনা খাতুন। এতে রোহিঙ্গাবিষয়ক ৫০টি আলোকচিত্রে তাঁদের দুঃখ, কষ্ট ও ভালোবাসা তুলে ধরা হয়েছে।

রোহিঙ্গাবিষয়ক আলোকচিত্রের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের আর্কাইভ থেকে ১১টি আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে সংযুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধকালীন বাঙালি শরণার্থীদের জীবনযাত্রার গল্প উঠে এসেছে।

আগামী ৭ জুলাই পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের অস্থায়ী প্রদর্শনী কক্ষে তা দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন