বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শাহবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) কামরুজ্জামান রাতে প্রথম আলোকে বলেন, কাঁটাবনে গাড়ির হর্ন দেওয়া নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে মারধরের ঘটনা ঘটে। পুলিশ একজনকে আটক করেছে। দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা চলছে।

রিশাদ হুদার সহকর্মী বনি ইবনে কামাল প্রথম আলোকে বলেন, বিকেলে কাঁটাবন এলাকা দিয়ে মোটরসাইকেলে করে শাহবাগের দিকে আসছিলেন রিশাদ। তাঁর সামনে একটি ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল। হর্ন দিয়ে ওই গাড়িটিকে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যেতেই রিশাদকে গালাগাল করেন চালক। এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে তর্ক হয়। একপর্যায়ে গাড়িতে থাকা তিন–চারজন রিশাদকে মারধর করে। সেখানে উপস্থিত লোকজন এগিয়ে এসে রিশাদকে রক্ষা করেন।

বনি ইবনে কামাল বলেন, কাঁটাবন থেকে রিশাদ মোটরসাইকেলে করে শাহবাগে আসার পর আবারও তাঁর ওপর হামলা চালানো হয়। রিশাদের পরিচয় পেয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহমেদ সমঝোতা করতে আজিজ সুপার মার্কেটে নিয়ে যান। সেখানে একটি কক্ষে আলোচনার সময় বাইরে থেকে কয়েকজন এসে তাঁর ওপর আবারও হামলা চালায়।

পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার পর এক পুলিশকেও আহত করে তারা। পরে সহকর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে রিশাদকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে শাহবাগ থানায় আসেন রিশাদ। রাত ১২টার দিকে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল বলে জানান তিনি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন