default-image

হেফাজতে ইসলামের সকাল-সন্ধ্যা হরতালে পুরান ঢাকায় যানবাহন চলাচল অনেকটা কম দেখা গেলেও ঢাকা কেন্দ্রীয় নৌবন্দরের বিভিন্ন লঞ্চঘাট থেকে সময় মতোই লঞ্চগুলো ছেড়ে গেছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরের প্রতিবাদে বিক্ষোভে সহিংসতায় হতাহতের ঘটনায় আজ রোববার দিনব্যাপী হরতাল ডেকেছিল হেফাজত। হরতালে কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভ–সংঘাত হলেও ঢাকার ভেতরে যান চলাচলে কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি।

সদরঘাট থেকে চাঁদপুর, মুন্সিগঞ্জ, শরীয়তপুর রুটের লঞ্চগুলো সকালে নির্দিষ্ট সময়ে ছেড়ে যায়। তবে যাত্রীর সংখ্যা কম দেখা গেছে। বিকেল থেকে দক্ষিণাঞ্চলগামী লঞ্চগুলোও ছাড়ছিল সময়মতোই।

বিজ্ঞাপন

পুরান ঢাকার বিভিন্ন প্রধান সড়ক ঘুরে অন্য দিনের মতো যানজট দেখা যায়নি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে সদরঘাট বাসস্ট্যান্ডেও বাসের দীর্ঘ লাইন ছিল না। সদরঘাট থেকে উত্তরা রুটের ভিক্টর ক্লাসিক বাসের ইনচার্জ মোহাম্মদ মামুন বলেন, বাস চালাতে কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি। প্রতিদিন দুপুর পর্যন্ত স্বাভাবিক দিনে ১৩০ থেকে ১৪০টি বাস চলে। তবে আজ যাত্রী চাপ কম থাকলেও ১১০টি বাস ছেড়ে গেছে।

সবজির পাইকারি বাজার শ্যামবাজার, কাপড়ের বাজার ইসলামপুর এলাকায় ভিড় ছিল কম। এদিকে সকাল থেকে হরতালবিরোধী মিছিল নিয়ে সড়কে ছিল ছাত্রলীগ।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন