আজ সোমবার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দেওয়া বক্তব্যে পীর ফজলু এই দাবি জানান। তিনি বলেন, সুনামগঞ্জ হাওর এলাকার একমাত্র ফসল বোরো। এই ফসল ঘরে তুলতে ১০-১৫ দিন সময় প্রয়োজন। কিন্তু এই মুহূর্তে বোরো ফসল হুমকির মুখে।

এবার বোরোর লক্ষ্যমাত্রা ১৩ লাখ টন। ১২টি উপজেলার ৫২টি হাওরে ২২ লাখ ২২ হাজার ২৯৫ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। কিন্তু হাওরে এখন সীমান্তের ওপার থেকে ঢল নেমে আসছে। সুনামগঞ্জেও বৃষ্টি হচ্ছে। মনে হচ্ছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় প্রশাসন এর গুরুত্বটা বুঝতে পারছে না। এই ফসলহানি হলে হাহাকার দেখা দেবে।

হাওরের ধান রক্ষায় উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানিয়ে পীর ফজলু বলেন, এই ফসলহানি হতে বেশি দিন লাগে না। এক দিনের ভেতর একটি–দুটি বাঁধ ভাঙা শুরু হলেই সব হাওর তলিয়ে যায়। টাঙ্গুয়ার হাওরের নজরখালি বাঁধ ভেঙে হাওরে পানি ঢুকেছে। আরও কয়েকটি বাঁধে ধস দেখা দিয়েছে। স্থানীয় লোকজন বাঁধ রক্ষায় কাজ করছে। ফসল তোলার জন্য কয়েকটা দিন দরকার। এই ফসলকে গুরুত্ব দিয়ে পানিসম্পদ ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের উচিত সবকিছু বাদ দিয়ে ফসল রক্ষা করা দরকার।

পীর ফজলু বলেন, হাওরে বাঁধ নির্মাণ ও মেরামতের জন্য প্রায় ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন