শ্যামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল আলম বলেন, গতকাল সন্ধ্যায় মিরাজ তালুকদার পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ বাসায় গিয়ে মিতু ফকিরকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

মিতুর ফুফাতো ভাই মাইনুল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল বিকেলে তাঁর বোন মিতুর সঙ্গে মিরাজের কথা–কাটাকাটি হয়।

ওসি মফিজুল আলম বলছেন, আইনজীবী মিতু ফকিরের মৃত্যু নিয়ে তদন্ত চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাখা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে। পুলিশ প্রাথমিকভাবে জেনেছে, বিয়ের পর থেকেই মাঝেমধ্যে তাঁদের মধ্যে কলহ হতো।
চার মাস আগে আইনজীবী মিতু ও মিরাজের বিয়ে হয়। এই দম্পতি শ্যামপুরের করিমুল্লাবাগ ইস্টার্ন হাউজিংয়ের একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।