এ সময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী বলেন, আগামীকাল রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। তিনি মৎস্য খাতে যাঁরা ভালো অবদান রেখেছেন তাঁদের হাতে পদক তুলে দেবেন। তিনি বলেন, সরকার চায় নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাঁওড় যেন মুক্ত থাকে এবং মাছ চাষের জন্য উপযোগী অবস্থায় থাকে। পরিবেশ যেন দূষিত না হয়, পানি যেন দূষিত না হয়। মা মাছ ও জাটকা ধরা থেকে সবাই যেন বিরত থাকে। যাতে মাছ বৃদ্ধি পেয়ে সমৃদ্ধি আসে।

মৎস্য খাতের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাসংক্রান্ত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের মানুষের মাছের চাহিদা মেটানোর সক্ষমতা আমাদের হয়েছে। ভবিষ্যতে মাছ রপ্তানি করে আমরা বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে চাই। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে দেশের সমৃদ্ধিতে মৎস্য খাত ভূমিকা রাখবে—সেটাই লক্ষ্য।’

নৌ শোভাযাত্রায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব এ টি এম মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. হেমায়েৎ হুসেন, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খ. মাহবুবুল হক, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ইয়াহিয়া মাহমুদসহ মন্ত্রণালয় ও মৎস্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, নৌপুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও মৎস্যজীবী সমিতির সদস্যরা অংশ নেন।

এর আগে সকালে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২২-এর কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে বর্ণাঢ্য সড়ক শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন