পুলিশ জানায়, দুপুরের দিকে ইশরাক যখন লাফিয়ে পড়ে, তখন তার মা স্কুলের বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। স্কুল থেকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা ইশরাককে মৃত ঘোষণা করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওপর থেকে কিছু একটা পড়ার শব্দ শুনে স্কুলের শিক্ষক–কর্মচারীরা ছুটে যান। ইশরাকের মা–ও এ সময় স্কুলে আসেন। দুজন শিক্ষককে সঙ্গে নিয়ে ইশরাকের মা পরে ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে যান। ইশরাকের খবর শুনে পুলিশ স্কুলে যায়। তারা অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলে এবং ঘটনাস্থল থেকে প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করে।

ইশরাকের মৃত্যুর বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন