তবে ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের বিষয়ে কিছু উল্লেখ করা হয়নি। জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ রেজাউল করিমও বলেন, গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনার সঙ্গে তাঁদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

এ বিষয়ে শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল বড়ুয়া প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুরের তথ্য পাওয়া গেছে। তবে সেটি কোন গাড়ি, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে পুলিশ যাওয়ার আগেই গাড়িটি চলে যায়।

মিছিলটি কারা বের করেছিল, কারা পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করেছে—সে সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ নেওয়া হচ্ছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বিক্ষোভ মিছিলটি জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীরা বের করেছিলেন কি না, জানতে চাইলে ওসি উৎপল বড়ুয়া বলেন, এটা এখনো জানা যায়নি। এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি।

জামায়াতে ইসলামীর বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দলটির ঢাকা মহানগর উত্তর আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলটি শ্যামলী বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে নগরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে শিশুমেলার সামনে এসে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন