মাজহারুল আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে ভর্তি পরীক্ষার আগে তাঁদের ট্রেনে করে রাজশাহীতে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। এ আশ্বাস পেয়ে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটের দিকে শিক্ষার্থীরা চলে যান। এখন ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সূত্র বলছে, ভাঙচুরের খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান।

নীলফামারীগামী ওই নীল সাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘হঠাৎ করে শিক্ষার্থীরা ট্রেন থামিয়ে দিয়ে আন্দোলন শুরু করেন। এ সময় আমরা ট্রেনের ভেতরেই ছিলাম। তাঁরা চলে যাওয়ার পর ট্রেন ছাড়ে।’

default-image

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সময় শুধু ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ট্রেন আটকা পড়েছিল। তবে বাইরে থেকে ঢাকায় আসা ট্রেন স্বাভাবিকভাবেই চলাচল করেছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন