অনেক চেষ্টা করেও বাসে উঠতে না পেরে ত্যক্ত-বিরক্ত শাহীন প্রথম আলোকে বলেন, ‘গতকাল রাতে সরকার যখন ডিজেল, অকটেনের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছিল, তখনই বুঝতে পেরেছিলাম, আজ নিশ্চয় বাসের ভাড়া বাড়বে। বাড়তি ভাড়া দিয়ে আমাকে যাত্রাবাড়ী থেকে গুলিস্তান যেতে হবে। তবে দুই ঘণ্টা অপেক্ষা করে বাসে চড়তে পারব না, সেই ভাবনা আমার মাথার মধ্যেই ছিল না।’

শাহীন আহমেদের মতো দেড় ঘণ্টা অপেক্ষা করেও বাসে উঠতে পারেননি তরুণ ব্যবসায়ী রহমত উল্লাহ। তিনি পল্টনে যাওয়ার উদ্দেশ্যে সাড়ে আটটার পর যাত্রাবাড়ীর কাজলার ঢালে আসেন। দূর থেকে কোনো বাস দেখলে রহমত উল্লাহ বাসে ওঠার চেষ্টা করেন, তবে শেষ পর্যন্ত বাসে আর উঠতে পারেননি তিনি।

রহমত উল্লাহ বলেন, ‘গতকাল রাতে যখন জানলাম, সরকার তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়েছি, তখন স্বাভাবিকভাবে আমি ভেবেছিলাম, বেশি ভাড়া দিয়েই আমাকে বাসে যেতে হবে। তবে রাস্তায় বাস পাব না, নির্ধারিত সময়ে কাজে যেতে পারব না, ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় বাসের জন্য অপেক্ষা করে থাকতে হবে, তা ভাবনার বাইরে ছিল। আমার মতো বহু মানুষ বাসে ওঠার জন্য রীতিমতো যুদ্ধ করছে। তবু বাসে উঠতে পারছে না।’
সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কাজলায় বাসের জন্য অপেক্ষা করা মানুষের লম্বা সারি দীর্ঘ হতে থাকে। কাজলা থেকে শনির আখড়া পর্যন্ত দুই শতাধিক মানুষকে বাসের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যায়। দূর থেকে বাস দেখলেই যাত্রীরা ছোটাছুটি শুরু করেন। দু-একজন বাসে উঠতে পারলেও বাকিরা চরম ক্ষুব্ধ।

default-image

বাসের জন্য দুই ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকা ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন বলেন, ‘গতকাল রাতে সরকার জ্বালানি তেলের দাম বাড়াইয়া দিল। আর আজ আমরা ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করেও বাস পাচ্ছি না। ঠিক সময়ে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে যেতে পারছি না। এই রোদে বাসের জন্য দুই ঘণ্টা অপেক্ষা করা, কতখানি কষ্টের, তা কাউকে বোঝানো সম্ভব নয়। এমন হয়রানি বন্ধ করার কেউ কি নেই?’

যাত্রীর তুলনায় বাস কম থাকার চিত্র দেখা গেছে যাত্রাবাড়ীর গোলচত্বর ও গুলিস্তান মোড়েও। বাসচালকের সহকারী আবদুল বারিক বলেন, ‘সরকার তেলের দাম বাড়াইয়া দিয়েছে, অথচ বাসের ভাড়া এখনো ঠিক করা হয়নি। এ জন্য রাস্তায় বাস কম।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বাসচালক বলেন, ‘বাসের ভাড়া নির্ধারণ না করে তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। গতকাল রাত থেকেই তো আমরা বেশি দামে তেল কিনছি। যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া নিতে গিলে বিপত্তি হচ্ছে। মালিকদের নির্দেশে রাস্তায় বাস কম চলছে।’

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন