ওই আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহামুদা আক্তার প্রথম আলোকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার কাগজপত্রের তথ্য অনুযায়ী, যৌতুকের জন্য গৃহবধূ সাবানা বেগমকে ২০০৫ সালের ১১ নভেম্বর আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ডেমরা থানায় মামলা হয়। মামলাটি তদন্ত করে ২০০৬ সালের ১২ মার্চ আসামি ফকির আমিনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় ডেমরা থানা–পুলিশ।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, ১৯৯৩ সালে গৃহবধূ সাবানা বেগমের সঙ্গে আমিন ওরফে ফকির আমিনের বিয়ে হয়। এই দম্পতির দুটি সন্তান রয়েছে। ২০০৫ সালের ১১ নভেম্বর গৃহবধূ সাবানা বেগমকে ধাক্কা দিয়ে গ্যাসের চুলায় ফেলে দেন আসামি ফকির আমিন। মৃত্যুর আগে সাবানা বেগম জবানবন্দি দেন। সেখানে তিনি বলেছিলেন, গ্যাসের চুলায় ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার পরও তাঁর স্বামী তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেননি।

এ মামলার বিচারে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে ১১ জন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করা হয়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন