সেমিনারের প্রধান অতিথি ও বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রতিবছর ডায়াবেটিস চিকিৎসায় দেশে প্রায় এক লাখ কোটি টাকা খরচ হয়। এই পরিমাণ টাকা দিয়ে পদ্মা সেতুর মতো একাধিক সেতু নির্মাণ সম্ভব। তিনি বলেন, এই খরচ বাঁচাতে হলে ডায়াবেটিস প্রতিরোধে আরও জোর দিতে হবে।

সেমিনারের প্রথম উপস্থাপনায় বিএসএমএমইউয়ের এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শাহজাদা সেলিম দেশে ডায়াবেটিসের প্রকোপের তথ্য তুলে ধরে বলেন, প্রায় ১ কোটি ৩১ লাখ মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। এক গবেষণায় দেখা গেছে, আক্রান্ত ব্যক্তিদের ১৮ দশমিক ৮৮ শতাংশের ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আছে।

ডায়াবেটিসের কিছু ঝুঁকির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ডায়াবেটিসের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে পরবর্তী প্রজন্মের অর্থাৎ মা-বাবার ডায়াবেটিস থাকলে সন্তানের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি থাকে।

অতিরিক্ত ওজন, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, কায়িক শ্রমের ঘাটতি—ডায়াবেটিসের কারণ হতে পারে। অন্যদিকে গর্ভাবস্থায় মায়ের অপুষ্টি থাকলে সন্তান ডায়াবেটিসের ঝুঁকি নিয়ে জন্মায়।

সেমিনারে অন্য দুটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নেফ্রোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সৈয়দ ফজলুল ইসলাম ও চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারিক রেজা আলী।