জ্বালানি তেল কম দেওয়ার অভিযোগে গতকাল সোমবার এই পেট্রলপাম্পের সামনে সাত ঘণ্টা ধরে অবস্থান করে প্রদিবাদ জানান বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা ইসতিয়াক আহমেদ। আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরে এসে লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। এরপর অভিযানে নামে বিএসটিআই।

মঙ্গলবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযানে দক্ষিণ কল্যাণপুরের খালেক ফিলিং স্টেশনে প্রতি ১০ লিটার ডিজেলে ৫০ মিলি কম, দুটি ইউনিটে অকটেনে যথাক্রমে ৪০ মিলি ও ৩১০ মিলি কম দেওয়ায় ৩ লাখ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় রহমান ফিলিং স্টেশনে ডিজেল ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ৬০ মিলি কম দেওয়ায় ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে তেলের পরিমাণ কম পাওয়ায় এই তিন ফিলিং স্টেশনের ৬টি ইউনিট সিলগালা করা হয়েছে। বিএসটিআইয়ের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হাসিব সরকার।

বিএসটিআইয়ের উপপরিচালক (সিএম) রিয়াজুল হক বলেন, মাপে তেল কম দেওয়ার প্রমাণ পাওয়ায় সোহরাব ফিলিং স্টেশনকে দুই লাখ টাকা ও পার্শ্ববর্তী আরও দুটি ফিলিং স্টেশনকে চার লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরে ইসতিয়াক আহমেদ অভিযোগ জানানোর পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামানও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, অনেক দিন ধরে ফিলিং স্টেশনগুলোয় তেলের মান ও পরিমাণ নিয়ে অভিযোগ আসছে। তাঁরা বিএসটিআইয়ের সঙ্গে কথা বলে সারা দেশে অভিযান পরিচালনা করবেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন