এই নারীর নাম চাঁদনী বেগম। তিনি পল্লবীর মুসলিম ক্যাম্প নামের বস্তিতে থাকতেন। তাঁর তিন বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের পল্লবী জোনের সহকারী কমিশনার মো. আবদুল হালিম প্রথম আলোকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আবদুল হালিম বলেন, চাঁদনীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

মোহাম্মদ জাহিদ নামের স্থানীয় এক বাসিন্দা প্রথম আলোকে বলেন, শনিবার রাত ৮টার পর তিনি জানতে পারেন, বাসার ভেতর চাঁদনীর মরদেহ ঝুলে আছে। রাত ১০টার পর পল্লবী থানা-পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে।    

গত ফেব্রুয়ারিতে চাঁদনীর স্বামী জাহিদ পল্লবীতে খুন হন বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা আবদুল হালিম। তিনি বলেন, ওই ঘটনায় পল্লবী থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।