প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আগুন দেখে হলের ছাত্রীরা চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করেন এবং বিভিন্ন তলা থেকে দলবেঁধে নিচে নেমে আসেন। কুয়েত মৈত্রী হলের নিচতলার সিঁড়ির পাশে থাকা বৈদ্যুতিক সংযোগে শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে বলে ধারণা করছেন হল প্রাধ্যক্ষ নাজমুন নাহার৷


ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা রাকিবুল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে বেলা আড়াইটার দিকে তাঁরা কুয়েত মৈত্রী হলে যান৷ তাদের দুটি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে৷ কোথা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।