হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো মোক্তারুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, চার–পাঁচদিন আগে হাজারীবাগে ১২–১৪ বছরের কিশোরেরা ক্রিকেট খেলা নিয়ে বিরোধে জড়ায়। ওই বিরোধ মেটাতে গিয়েছিল তাদের চেয়ে বয়সে অল্প বড় কিশোরেরা। কথায়–কথায় তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি–মারামারি লাগে। গতকাল নিহত আবদুল হকসহ কয়েকজন ছেলে ধারালো অস্ত্র নিয়ে আলী হোসেন স্কুলের গলিতে আসে প্রতিপক্ষকে শায়েস্তা করতে। কিন্তু তারা ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর তারা আবার ফিরে আসে। এ সময় আশপাশের লোকজন তাদের ধাওয়া দেয়। দলের অন্য সদস্যরা পালাতে পারলেও আবদুল আর পালাতে পারেনি। সে নিচে পড়ে যায়। এরপরই তাকে এলোপাতাড়ি কোপায় অন্য পক্ষের ছেলেরা।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। আবদুলের ওপর হামলাকারী তরুণের নাম বাপ্পী বলে জেনেছে তারা।
আবদুল হকের গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন