সোমবার কেক কেটে আবদুল্লাহ আবু সায়ীদের জন্মদিন উদ্‌যাপন করেন তাঁর ভক্ত ও গুণগ্রাহীরা। প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান থেকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একটি পরিচিত গান আছে, “কী পাইনি হিসাব মিলাতে মন–মোর নহে রাজি”। তিনি কেন হিসাব মেলাতে চাননি? কারণ, তিনি পাওয়ার জন্য কাজ করেননি, তিনি কাজ করেছেন আনন্দের জন্য। আনন্দের জন্য যদি কিছু করা হয়, আনন্দই তো পাওয়া। সুতরাং আমি বয়স চাই না, আমি যৌবন চাই। যে কদিন বাঁচি আমি সজীবভাবে বাঁচতে চাই, কাজ করে বাঁচতে চাই। আমি ভালোবেসে বাঁচতে চাই।’

গফরগাঁওয়ের রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক আলতাফ হোসেন গোলন্দাজের নামে গত বছর এই পুরস্কার প্রবর্তন করে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের বিনোদন পাক্ষিক আনন্দ আলো। করোনা মহামারির কারণে গত বছর পুরস্কারের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়নি। এক বছর পর আজ শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদের জন্মদিনে তাঁর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হলো।

সোমবার চ্যানেল আই কার্যালয়ে গোলন্দাজ–আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার ২০২১–এর আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন আলতাফ হোসেন গোলন্দাজের ছেলে গফরগাঁওয়ের সংসদ সদস্য ফাহমি গোলন্দাজ, আনন্দ আলোর সম্পাদক রেজানুর রহমান, শিশুসাহিত্যিক আমীরুল ইসলাম, অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম প্রমুখ। আবদুল্লাহ আবু সায়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় পুরস্কারের স্মারক ও অর্থমূল্য এক লাখ টাকা।

বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য সম্মাননা জানাতে এ পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়েছে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ২০২২ ও ২০২৩ সালের পুরস্কার একসঙ্গে দেওয়া হবে। আয়োজকেরা জানান, ২০২৪ সাল থেকে একজন প্রতিষ্ঠিত সাহিত্যিকের পাশাপাশি একজন তরুণকেও এ পুরস্কার দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন