গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল, আগামী ১ থেকে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল বন্ধ থাকবে। ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ছাত্রীদের হল ত্যাগ করতে বলা হয়।

কারণ, দুর্গাপূজা, লক্ষ্মীপূর্জা ও পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ২ থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ইনস্টিটিউট, বিভাগের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে।

তবে এ সিদ্ধান্তের পর ছাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। ছাত্রীদের সঙ্গে ক্যাম্পাসের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরাও কয়েকটি বানান ভুল থাকা বিজ্ঞপ্তিটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করে সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন।

পরে সকালে এক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সিদ্ধান্তটি বাতিল করে হল প্রশাসন। এ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে গতকালের হল বন্ধের বিজ্ঞপ্তিটি বাতিল করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হলের প্রভোস্ট শামীমা বেগম প্রথম আলোকে বলেন, ছাত্রী হলে ১৬ তলা ভবনে মাত্র চারজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী কাজ করেন। তাঁরা সবাই সনাতন ধর্মাবলম্বী হওয়ায় ছুটিতে থাকবেন। এমন অবস্থায় হল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। পরে ছাত্রীরা অসুবিধার কথা আবেদন করে জানালে, কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বন্ধের সিদ্ধান্তটি বাতিল করেছি।

হল প্রভোস্ট বলেন, বন্ধের বিজ্ঞপ্তিতে একাধিক ভুল থাকায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন