অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সময় ২০০৬ সালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) ‘ঢাকা শহরের তিনটি পাইকারি কাঁচাবাজার নির্মাণ প্রকল্প’ পাস করে। কৃষিপণ্যের বাজার ও সরবরাহব্যবস্থা উন্নয়নের পাশাপাশি কারওয়ান বাজারের যানজট কমাতে প্রকল্পটি নেওয়া হয়। এই উদ্দেশ্যে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, আমিনবাজার এবং মহাখালী এলাকায় তিনটি কাঁচাবাজার করা হয়েছিল।

সবশেষ তিন দফা সময় বাড়িয়ে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৭ সালের জুনে এর কাজ শেষ হয়। যদিও প্রকল্পটির আওতায় যাত্রাবাড়ীতে একটি ব্লকের ছাদের নির্মাণকাজ এখনো অবশিষ্ট রয়েছে। প্রকল্পের মেয়াদ না থাকায় অবশিষ্ট কাজ এখন আর বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘দোকানিরা বলছেন, আমরা কী ধরনের দোকান চাই, আর আপনারা কী ধরনের বানিয়ে দিলেন? সেখানে তো যাওয়া সম্ভব না। সুতরাং তারা (দোকানিরা) কী ধরনের দোকান চায়, সেটা জানতে চেয়েছি। তারা বলছে, কারওয়ান বাজারে যে আকার বা আয়তনের দোকান আছে, আমিনবাজারেও সেভাবে করে দিতে।’

আমিনবাজারে নির্মিত কাঁচাবাজারের বিষয়ে মেয়র বলেন, সবজি তো এখানে (আমিনবাজার কাঁচাবাজারে) ঢোকানো যাবে না। ট্রাক থেকে নামিয়েই কীভাবে খোলা জায়গায় রাখা যায়, সবজির আড়তের জন্য এমন জায়গা দেখতে হবে। এ ছাড়া ট্রাক থেকে নামানোর কিংবা ওঠানোর জন্য সে রকম নকশা করে দিতে হবে। তিনি আরও বলেন, এখানে নতুনভাবে চিন্তা করতে হবে। যাঁরা দোকানি, তাঁদের সঙ্গে আলোচনা করেই সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কারও ওপর চাপিয়ে দিলে সেটা টেকসই হবে না।

মিরপুর-১১ নম্বর এলাকায় করপোরেশনের প্যারিস মার্কেট প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, ‘আমি ওই মার্কেটের নাম দিয়েছি জন্ম থেকে জ্বলছি। মার্কেটটি চালুই হলো না। অথচ বুয়েট (বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়) বলছে মার্কেটটি পরিত্যক্ত হয়ে গেছে। মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটও পরিত্যক্ত হয়ে যেত। সেখানে অন্তত হাসপাতাল করা গেছে।’

কারওয়ান বাজার স্থানান্তরের যৌক্তিকতা তুলে মেয়র বলেন, ঢাকাকে একটি পরিকল্পিত ও আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে পাইকারি কাঁচাবাজারগুলো শহরের প্রান্তে নিতে হবে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাইকারি বাজারে আসা পণ্যবাহী গাড়ি শহরে প্রবেশ না করলে যানজট অনেকাংশেই কমে যাবে।

পরিদর্শনের সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহ. আমিরুল ইসলাম, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এস এম শরিফ-উল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন