রাষ্ট্রপতি বিচারকদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন বিষয়ে সময়োপযোগী প্রশিক্ষণের ওপরেও গুরুত্বারোপ করেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, বৈঠকে প্রতিনিধিদল কমিশনের সার্বিক কার্যক্রমের পাশাপাশি দাখিলকৃত প্রতিবেদনের সারমর্ম রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার, অ্যাটর্নি জেনারেল আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার এবং জেলা ও দায়রা জজ এ এইচ এম হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া।

জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন একটি সরকারি কমিশন, যা বাংলাদেশে বিচারক নিয়োগ ও পরীক্ষার জন্য দায়িত্ব পালন করে থাকে। এই কমিশন বেশির ভাগই সুষ্ঠু নিয়োগ বজায় রাখার জন্য পরিচিত এবং এর মাধ্যমে বাংলাদেশের বিচার বিভাগে সবচেয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীরা নিয়োগ পাচ্ছেন। এর অধীনে নিয়োগপ্রাপ্ত বিচারকেরা বাংলাদেশের ন্যায়বিচার প্রদান ব্যবস্থায় একটি যুগোপযোগী ভূমিকা পালন করে থাকেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং কমিশনের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়ারও আশ্বাস দেন।

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন