বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সব মিলিয়ে দেশে এ পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ৫৯ হাজার ৫৩৮ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ১৭ হাজার ৫২ জনের।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ৯৭ হাজার ৪১২ জন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ২৪৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি ৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে ঢাকা বিভাগে। খুলনা বিভাগে মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের। চট্টগ্রাম বিভাগে মারা গেছেন ৩৯ জন, রাজশাহীতে ১৫ জন এবং রংপুর বিভাগে মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের। বাকিরা অন্যান্য বিভাগের।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়। কয়েক মাসের মধ্যে এই ভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ।

এরপর বিভিন্ন সময়ে সংক্রমণ বেশি–কম হলেও মাসখানেকের বেশি সময় ধরে দেশে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌঁছেছে। দেশে করোনার ডেল্টা ধরনের দাপটে দৈনিক সংক্রমণ এবং করোনায় মৃত্যু কয়েক গুণ বেড়েছে।

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে গত ১ জুলাই থেকে দেশে সর্বাত্মক লকডাউন চলছে। সব ধরনের অফিসের পাশাপাশি গণপরিবহনও চলাচল বন্ধ রয়েছে। আগামী ২১ জুলাই ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে এই বিধিনিষেধ আট দিনের জন্য শিথিল করা হয়েছে।

তবে এমন এক সময়ে এই বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে যখন দেশে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুতে নতুন নতুন রেকর্ড হচ্ছে। সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় বর্তমানে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে যেসব দেশে, সেই তালিকায় অষ্টম অবস্থানে চলে এসেছে বাংলাদেশ। করোনায় দৈনিক মৃত্যুর দিক দিয়েও বাংলাদেশ এখন এই অবস্থানে। বিশ্বজুড়ে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বিবেচনায় নিয়ে এই তালিকা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত বিশ্বে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৮ কোটি ৭০ লাখ ৮৬ হাজার ৯৬ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৪০ লাখ ৪২ হাজার ৯২১ জনের।

এখন পর্যন্ত সবচেয়ে রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ব্রাজিল এবং তারপরে রয়েছে ভারত।

মঙ্গলবার দেওয়া তথ্যে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ইন্দোনেশিয়ায়। দেশটিতে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৪৭ হাজার ৮৯৯ জন, আর এ সময় মৃত্যু হয়েছে ৮৬৪ জনের।

ভারত রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে তৃতীয় অবস্থানে থাকলেও গত ২৪ ঘন্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে প্রতিবেশী দেশটিতে। এই সময়ে দেশটিতে ৩২ হাজার ৯০৬ জনের করোনা শনাক্তের বিপরীতে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২০ জনের। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাজ্যে, ৩৩ হাজার ৯৯৮ জন।

করোনার ডেলটা ধরনের দাপটে ধুঁকছে টিকা উৎপাদনকারী দেশ রাশিয়াও। মঙ্গলবার দেশটি আগের ২৪ ঘণ্টায় ৭৮০ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে। ওই সময় রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৪ হাজার ৭০২ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার করা তালিকায় মৃত্যুর দিক দিয়ে তৃতীয় এবং রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। মহামারি শুরু হওয়ার পর দেশটিতে এখনই সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন