বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০২০ সালের এপ্রিলে মহামারির প্রাদুর্ভাবের পর থেকে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী এবং সম্মুখসারির সংস্থাগুলোর সহায়তায় বাংলাদেশের ২০টি প্রকল্পে ১৭ মিলিয়ন সুইস ফ্র্যাংক (প্রায় ১৬০ কোটি টাকা) আর্থিক সহায়তা দিয়েছে সুইজারল্যান্ড। সুইস সহযোগিতায় এখন পর্যন্ত প্রায় ১৫ লাখ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা সম্পর্কে সচেতনতা ও প্রশিক্ষণ লাভ করেছে। ১০ লাখ মানুষ কোভিড-১৯–এর উন্নত চিকিৎসার জন্য টেলিমেডিসিন পরিষেবা পেয়েছে। ১ লাখ ৩০ হাজার নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়। এ ছাড়া ১ লাখ ১৫ হাজার মানুষকে নগদ অর্থসহায়তা এবং ৬০ হাজার জনকে পুষ্টিকর খাবার দেওয়া হয়। তা ছাড়া লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের মনস্তাত্ত্বিক ও আইনি সহায়তা দেওয়ার জন্য চারটি হেল্পলাইন স্থাপন করা হয়।

সবার জন্য আগামী দিনগুলোয় টিকা নিশ্চিত করাই হবে এই বৈশ্বিক সংকট থেকে মুক্তির একটি অন্যতম চাবিকাঠি। কোভ্যাক্সের উদ্যোগে অতিরিক্ত ৩০০ মিলিয়ন সুইস ফ্র্যাংক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর সুইজারল্যান্ডের ফেডারেল কাউন্সিল গতকাল বুধবার এই বৈশ্বিক উদ্যোগে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৪০ লাখ টিকা অনুদানের ঘোষণা দেয়। এগুলো উন্নয়নশীল দেশগুলোয় আরও অধিক পরিমাণে টিকা দ্রুত সরবরাহে সাহায্য করবে।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন