মো. সাইফুল ও মাশরার হাসান নামের দুই শিক্ষার্থী জানায়, টিকা নেওয়ার আগে তাদের একটু ভয় ভয় লাগছিল। কিন্তু পরে তাদের ভয় কেটে যায়। টিকা নিতে তাদের কোনো সমস্যা হয়নি।

স্কুলটির অধ্যক্ষ জ্ঞানেশ চন্দ্র ত্রিপাটী বলেন, ‘সরকার ও স্বাস্থ্য বিভাগ আমাদের স্কুলে টিকাদানের ব্যবস্থা করায় ধন্যবাদ জানাচ্ছি। টিকায় আমাদের শিক্ষার্থীরা সুরক্ষিত থাকবে।’

সাইডার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল নিজেরা যোগাযোগ করে এই টিকাদানের উদ্যোগ নেয়।

সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, সাইডারের পর মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগ থেকে যদি অন্যান্য স্কুলের শিক্ষার্থীদের তালিকা দেয়, তাহলে তাদেরও টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হবে। কিন্তু এখনো তারা কোনো তালিকা দেয়নি।