বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মীরজাদী বলেন, যিনি টিকা নেবেন, তিনি যেই কেন্দ্র থেকে টিকা নিয়েছিলেন, সেই কেন্দ্র থেকে এসএমএস পেলে তখনই বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন। এ ছাড়া অন্য জেলায় নিতে হলেও তাঁর নির্ধারিত কেন্দ্র থেকে এসএমএস পেতে হবে। তিনি জানান, এক জেলা থেকে আরেক জেলায় বুস্টার ডোজের জন্য কেন্দ্র পরিবর্তন করা গেলেও ঢাকার মধ্যে কেন্দ্র পরিবর্তন করা যাবে না।

ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিদের পাশাপাশি সম্মুখসারির যোদ্ধাদের বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদেরও বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ৪ জানুয়ারির হিসাব পর্যন্ত দেশে এখন পর্যন্ত টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৭ কোটি ৫৭ লাখ ৮৯ হাজার ২৮৬ জন, দ্বিতীয় ডোজ ৫ কোটি ৩৫ লাখ ৮২ হাজার ৬৪০ এবং বুস্টার ডোজ নিয়েছেন ২ লাখ ৭ হাজার ১৮৫ জন।

দেশে আবার করোনার সংক্রমণের হার বাড়ছে। আগের দিনের চেয়ে শনাক্ত শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ বেড়েছে। তবে এখনো ডেলটা ভেরিয়েন্টের দাপটই বেশি বলে জানাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

মীরজাদী সেব্রিনা বলেন, যে ১০ জনের অমিক্রন শনাক্ত হয়েছে, তাঁরা ছাড়া অন্যদের ডেলটা ভেরিয়েন্ট হওয়ার আশঙ্কা বেশি।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন