জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভায় সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সব ক্ষেত্রে শতভাগ মাস্ক পরা এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের সুপারিশ করা হয়। সচেতনতা তৈরির জন্য প্রচার বাড়ানোরও সুপারিশ করা হয়।
কমিটির সভায় বলা হয়, যেসব দেশে সংক্রমণের হার বেশি সেসব দেশ থেকে বাংলাদেশে আসার ক্ষেত্রে টিকা দেওয়া থাকলেও কোভিড নেগেটিভ সনদ নিশ্চিত করতে হবে। এ ছাড়া সব বন্দরের প্রবেশপথে স্ক্রিনিং জোরদারের পরামর্শ দেওয়া হয় সভায়।

সভায় আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাজার ও কেনাকাটা এবং ঘরমুখী মানুষের যাতায়াতের সময় মাস্ক পরা নিশ্চিতের সুপারিশ করা হয়। এ ছাড়া তারাবিহর নামাজ ও ঈদের জামাতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

করোনা মোকাবিলায় হাসপাতালগুলোকে সতর্ক করার জন্য হাসপাতালগুলোকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে বলা হয়।

গতকাল রাতের সভায় সভাপতিত্ব করেন কোভিড-১৯–সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সহিদুল্লা।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন