বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে সিআইডির কুমিল্লা ও নোয়াখালী বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার খান মুহাম্মদ রেজোয়ান বলেন, ইকবাল একেক সময় একেক ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, সাত দিনের রিমান্ডের পাঁচ দিন পার হয়েছে গতকাল বুধবার। শুক্রবার পর্যন্ত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ চলবে।

পুলিশ বলছে, নানুয়া দিঘির পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রেখেছিলেন শহরের দ্বিতীয় মুরাদপুরের লস্করপুকুরপাড়ের বাসিন্দা ইকবাল হোসেন। পরে তাঁকে কক্সবাজারে আটক করা হয়।

এদিকে গত মঙ্গলবার রাতে পুলিশ কুমিল্লা নগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ নিয়ে হামলা–ভাঙচুরের ঘটনায় করা ১১ মামলায় ৮১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পীরগঞ্জে যুবক গ্রেপ্তার

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় হিন্দুপাড়ায় হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আরও এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার চতরা এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ নিয়ে ওই ঘটনায় করা ৪ মামলায় ৭০ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

গ্রেপ্তার নজরুল ইসলামের (৩৫) বাড়ি উপজেলার চতরা এলাকায়। পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, গ্রেপ্তার নজরুলকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

‘গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে’

ফেনীতে আশ্রম–মন্দিরে হামলা, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনের বাড়িতে হামলার ঘটনায় আরও একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার রবিউল হকের (৩০) বাড়ি ছাগলনাইয়া উপজেলার মধ্যম মটুয়া গ্রামে। এ নিয়ে হামলার ঘটনায় করা ৪টি মামলায় ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মাহফুজুর রহমান বলেন, রবিউল হককে গতকাল আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানায় পুলিশ। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান শুনানি শেষে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনি বলেন, ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যাতে হয়রানির শিকার না হন, সেদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে। ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার দুজন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। আরও ছয়জনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে।

নোয়াখালীতে আরও তিনজন গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে মন্দির, পূজামণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় করা মামলায় জেলা যুবদলের সভাপতি মঞ্জুরুল আজিম ওরফে জিএস সুমনসহ (৪৯) আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে গতকাল ভোর পর্যন্ত রাঙামাটি ও নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল সন্ধ্যায় নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম।

এ নিয়ে নোয়াখালীর বিভিন্ন থানায় করা ২৬টি মামলায় এ পর্যন্ত ২০৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন