একপর্যায়ে তাঁকে মারধর করা হয়। এ বিষয়ে আদালতে মামলা করার জন্য ওই গৃহবধূ তাঁর এক আত্মীয়ের সঙ্গে আলাপ করতে নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানা ছিন্নমূল এলাকায় আসেন গত শনিবার।

ওসি কামরুজ্জামান আরও বলেন, রোববার দুপুরে চাচার বাসা থেকে বেরিয়ে অক্সিজেন মোড়ে আসেন ওই গৃহবধূ। ওই সময় তিনি চট্টগ্রাম আদালত ভবনে যাবেন বলে জানান বাসচালককে। বাসচালক নুরুল আলম ওই গৃহবধূকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা বাসে তুলে ফেলেন।

কিন্তু বাসে অন্য কোনো যাত্রী ছিল না। পরে দরজা বন্ধ করে চালক নুরুল আলমসহ দুজন ধর্ষণ করেন। বাকি তিনজন ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে গৃহবধূ বিষয়টি অক্সিজেন মোড়ে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকে জানান। খবর পেয়ে পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করে।

এ ঘটনায় বায়েজিদ বোস্তামী থানায় মামলা হয়েছে। গৃহবধূ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন।

কামরুজ্জামান বলেন, গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে চারজনের নামে মামলা করেছেন। তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও রাজু নামের আরেকজনকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন