বিজ্ঞাপন

পরিবারের সদস্যরা জানান, পাটকাঠির বেড়া পুরো পুড়ে গেছে। তাঁর মধ্যে থাকা সালেহা বেগমের পুরো শরীর পুড়ে মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় আজ শনিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়, সহকারী পুলিশ সুপার (কালিয়া সার্কেল) প্রণব কুমার সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুল হুদা, কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ কনি মিয়া।

ওসি শেখ কনি মিয়া বলেন, ওই বৃদ্ধাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যেই আগুন লাগানো হয়েছে, এটি নিশ্চিত করে বলা যায়। তবে কারা, কী উদ্দেশ্যে করেছেন, তা তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ওই গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের বিরোধ রয়েছে। বিরোধের জেরে গত বছর ২০ সেপ্টেম্বর প্রতিপক্ষের হাতে খুন হন সালেহা বেগমের ছেলে আরিফ খন্দকার। ওই দুই পক্ষের মধ্যে এক পক্ষে নেতৃত্ব দেন সালেহা বেগমের ছেলে ইরুপ খন্দকার। আরেক পক্ষের নেতৃত্বে আছেন আকছির মোল্লা।

ইরুপ খন্দকারের অভিযোগ, তাঁর ভাই হত্যার আসামিরা তাঁর মাকে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন।

এ বিষয়ে আকছির মোল্লার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে তাঁর পক্ষের একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, তাঁদের ফাঁসাতে নিজেরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন