default-image

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামে নিজের বাড়ির পেছন থেকে ঝুনু মিয়া (৩৩) নামের এক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কাজীর পয়েন্ট এলাকায় ঝুনু মিয়ার আসবাবপত্রের ব্যবসা আছে। গতকাল রাত ১০টা পর্যন্ত তিনি দোকানেই ছিলেন। রাত ১০টার দিকে তাঁর ভাতিজা অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে ঝুনু মিয়াও সেখানে যান। অবস্থার অবনতি হলে ভাতিজাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে রাত ১২টার দিকে তিনি বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন। রাত দেড়টার দিকে তাঁর ফোন থেকে বাড়িতে অন্য এক ব্যক্তি কল দেন। সেই কল কেটেও দেন। এরপর পরিবারের লোকজন তাঁকে খোঁজ করেও পাননি। আজ সকালে বাড়ির পাশে বস্তা দিয়ে ঢাকা অবস্থায় তাঁর লাশ পাওয়া যায়। ঝুনু মিয়ার মাথা ও ঘাড়ে আঘাতের চিহ্ন আছে।

ঝুনু মিয়ার মা আনোয়ারা বেগমের দাবি, তাঁর ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।

খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, কে বা কারা ঝুনু মিয়াকে হত্যা করেছে তা এখনো জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে এ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0