সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফকরুজ্জামান বলেন, গত সোমবার বিকেলে ওই নারী বাবার বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হন। এর পর থেকে স্বজনেরা তাঁর কোনো সন্ধান পাননি। বুধবার সন্ধ্যায় শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কের তেলুঞ্জিয়া শিমুলতলি এলাকার বাবুল মিয়া নামের এক বালু ব্যবসায়ীর টিনশেড ঘরের চৌকির ওপর থেকে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই রাতেই নিহতের মা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে লাশ উদ্ধারের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ঘটনায় জড়িত তিন যুবককে গ্রেপ্তার করে।

মোহাম্মদ ফকরুজ্জামান বলেন, গ্রেপ্তার হওয়া ওই যুবকেরা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে ওই নারীকে গামছা পেঁচিয়ে শ্বাস রোধ করে হত্যার কথা জানিয়েছেন। তাঁদের গতকাল বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে নেত্রকোনা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, সহকারী পুলিশ সুপার (দুর্গাপুর সার্কেল) মাহমুদা শারমিন নেলি, দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শিব্বিরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন