চক্রের ছয়জনকে গ্রেপ্তারের পর আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার গেন্ডারিয়ার ডিএনসির ঢাকা দক্ষিণ অঞ্চলের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন ডিএনসির ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের অতিরিক্ত পরিচালক জাফরুল্ল্যাহ কাজল।

জাহাঙ্গীর বন্ধু এবং পরিচিত ব্যক্তিদের নিয়ে এই চক্র গড়ে তোলেন। এর আগে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত হলেও বেশি লাভের আশায় কোকেন চোরাচালানে যুক্ত হন তিনি। তিনি কক্সবাজারে গাড়িচালক হিসেবে পরিচিত।

সংবাদ সম্মেলনে জাফরুল্ল্যাহ কাজল জানান, গত মাসে একটি কোকেন পাচারকারী চক্রের সন্ধান পাওয়ার জন্য সংবাদদাতা নিয়োগ করা হয়। তারপর ক্রেতা সেজে চক্রের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। চক্রের পাঁচ সদস্য কোকেন বিক্রি করতে প্রাইভেট কারে খিলক্ষেত এলাকায় এলে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে কোটি টাকার কোকেন উদ্ধার করা হয়েছে।

কোকেন সেবনে খিঁচুনি, হৃদ্‌রোগ, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক, যৌনক্ষমতা কমে যাওয়া, ফুসফুসের ক্ষতি, এইচআইভি, অন্ত্রের ক্ষয় ও নাক দিয়ে রক্ত পড়া রোগ হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, চক্রের মূল হোতা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম গভীর সমুদ্রে চলাচলকারী ট্রলার থেকে কোকেন সংগ্রহ করেন। বিশ্বকাপ কেন্দ্র করে এই কোকেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে পাচারের পরিকল্পনা ছিল। জাহাঙ্গীর বন্ধু এবং পরিচিত ব্যক্তিদের নিয়ে এই চক্র গড়ে তোলেন। এর আগে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত থাকলেও বেশি লাভের আশায় কোকেন চোরাচালানে যুক্ত হন। তিনি কক্সবাজারে গাড়িচালক হিসেবে পরিচিত। এ চক্রের সদস্যদের বিরুদ্ধে ঢাকার খিলক্ষেত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

কোকেনের প্রভাব সম্পর্কে ডিএনসি কর্মকর্তারা জানান, সারা বিশ্বে মূল্যবান ও ভয়ংকর মাদক কোকেন। এ মাদকের সবচেয়ে বেশি ব্যবহার উত্তর আমেরিকার দেশগুলোতে। এরপরই আছে ইউরোপ ও দক্ষিণ আমেরিকা। ১৯৬১ সালে আন্তর্জাতিক আইনে কোকেন সেবন অপরাধ হিসেবে গণ্য হয়। চিকিৎসায় কোকেনের ব্যবহার খুবই সীমিত। অঙ্গপ্রত্যঙ্গের অসাড়তা দূর করতে এবং নাকের অপারেশনের সময় রক্ত পড়া বন্ধ করতে সামান্য পরিমাণ কোকেন ব্যবহৃত হয়। কোকেন সেবনে খিঁচুনি, হৃদ্‌রোগ, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক, যৌনক্ষমতা কমে যাওয়া, ফুসফুসের ক্ষতি, এইচআইভি, অন্ত্রের ক্ষয় ও নাক দিয়ে রক্ত পড়া রোগ হয়।