আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডি প্রধান মোহাম্মদ আলী মিয়া। তিনি বলেন, সম্প্রতি চালু করা বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠিত অ্যাপ ‘বিনিময়’ প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র গত ১০ নভেম্বর থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত ডিজিটাল প্রতারণার মাধ্যমে মোট ৯৬ লাখ ৭৪ হাজার ২৫৭ টাকা আত্মসাৎ করে।

তাঁরা মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের সেলফিন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে ‘বিনিময়’ প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করে তাঁদের নিজেদের বিকাশের ব্যক্তিগত হিসাবে (অ্যাকাউন্ট) অবৈধভাবে টাকা ট্রান্সফারের অনুরোধ পাঠান। এই অনুরোধে বিকাশ থেকে প্রতারকদের বিকাশের ব্যক্তিগত হিসাবে টাকা ট্রান্সফার হয়। এ সময়ে প্রতারক চক্রের সদস্যদের সেলফিন অ্যাকাউন্টে কোনো টাকা না থাকা সত্ত্বেও বিনিময় প্ল্যাটফর্ম থেকে ডিজিটাল প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করে।

ডিজিটাল লেনদেনের সুবিধার্থে তৈরি বিনিময় প্ল্যাটফর্মটি বাংলাদেশের ব্যাংক পরিচালনা করছে। এর মাধ্যমে ব্যাংক এবং বিকাশ, রকেটসহ বিভিন্ন মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের মধ্যে আন্তলেনদেন করা যায়।

সিআইডিপ্রধান মোহাম্মদ আলী মিয়া বলেন, এ চক্রের আরও তিন সদস্য নজরদারিতে রয়েছেন। তাঁদের বিষয়ে আরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।