পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার আরিয়ান আহম্মেদ রাজধানীর দক্ষিণখানের পূর্ব আজমপুরের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মোট ৮টি মামলা রয়েছে।

পুলিশ বলছে, মিজান নামে এক প্রবাসীর কাছ থেকে কম্পিউটার ব্যবসায় বিনিয়োগের নামে এক লাখ টাকা নেন আরিয়ান। এরপর নিজেকে বড় স্বর্ণ ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৯ লাখ টাকা মূল্যের স্বর্ণের বার নেন। পরে তাঁকে ১০ লাখ টাকা পরিশোধের কথা বলে ব্যাংকের চেক দেন। কিন্তু সেই ব্যাংক হিসাবে কোনো টাকা ছিল না।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন প্রথম আলোকে বলেন, মিঠুন সরকার নামের আরেক ব্যক্তিকে নিজেকে কানাডাভিত্তিক একটি এনজিওর কান্ট্রি ডিরেক্টর পরিচয় দেন আরিয়ান। এই এনজিওর উদ্যোগে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিশ্বমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে দেওয়ার কথা বলে তাঁর কাছ থেকে ১৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন।

তিনি বলেন, মিজান ও মিঠুন এ ব্যাপারে অভিযোগ করলে আরিয়ানকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে আরিয়ান মঙ্গলবারই পালিয়ে ইতালিতে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।