default-image

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের কাছ থেকে তিনটি জ্যাকেট (যার প্রতিটিতে সামনে ডিবি লেখা), একটি হাতকড়া, একটি লাঠি (ইস্পাতের), দুটি হোলস্টার, তিনটি পিস্তলসদৃশ খেলনা পিস্তল, একটি ওয়াকিটকি (খেলনা), বিভিন্ন নামের পাঁচটি চেক বই, একটি নোয়াহ মাইক্রোবাস (চাবিসহ) ও একটি ‘পুলিশ’ লেখা স্টিকার জব্দ করা হয়। ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশীদ বলেন, চক্রের সদস্যরা সাধারণ গ্রাহকের ছদ্মবেশে ব্যাংকে প্রবেশ করে লেনদেনকারীদের অনুসরণ করেন।

বেশি টাকা লেনদেনকারীদের বিষয়ে তথ্য পেলেই ব্যাংকের বাইরে অবস্থানকারী সদস্যদের জানিয়ে দেওয়া হয়। ব্যাংক থেকে নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে অনুসরণ করতে থাকেন চক্রের সদস্যরা। সুবিধাজনক স্থানে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে লক্ষ্যবস্তু বানানো ব্যক্তিকে গাড়িতে তুলে ভয় দেখানো হয়।

প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তাঁর সঙ্গে থাকা টাকা ও অন্যান্য মূল্যবান সামগ্রী লুট করে নিয়ে নেন তাঁরা। পরে রাস্তায় কোনো সুবিধাজনক স্থানে ভুক্তভোগীকে গাড়ি থেকে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায় চক্রটি।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন