মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা নিয়ে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গত বছরের নভেম্বর মাসের তুলনায় ডিসেম্বরে সারা দেশে খুন, ডাকাতি, ধর্ষণ এবং নারী ও শিশু নির্যাতনের মতো অপরাধের ঘটনায় মামলা কমেছে। তবে এ-সংক্রান্ত কোনো পরিসংখ্যান দেয়নি পুলিশ সদর দপ্তর।

মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় শেষে মাঠপর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল সভা করেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। আইজিপির সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল সভায় দেশের সব মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও পুলিশ সুপার (এসপি) যুক্ত ছিলেন।

আইজিপি বলেন, পুলিশের সেবার মূল কেন্দ্র হচ্ছে থানা। তাই থানায় সেবার মান ও মামলার তদন্তের মান বাড়াতে হলে মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাজ করতে হবে। থানায় আসা সেবাপ্রত্যাশীদের সমস্যা সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করে আইনি সহায়তা দিতে হবে। এ জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তদারকি বাড়াতে হবে।

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির কারণে পুলিশ জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে সফল হয়েছে। পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সক্ষম।

আইজিপি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি ঘোষণা করেছেন। পুলিশ এ নীতি কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করছে। অপরাধ দমনে জনগণের সম্পৃক্ততা আরও বাড়াতে হবে। এ ক্ষেত্রে বিট পুলিশিং এবং কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম আরও জোরদার করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।