র‌্যাব-১০–এর সহকারী পরিচালক (অপস.) এনায়েত কবীর শোয়েব প্রথম আলোকে বলেন, সোনিয়া আক্তার ও মো. সাগর দম্পতি সাত মাস বয়সী সন্তান মোছাইফা ইসলাম জান্নাতকে নিয়ে কামরাঙ্গীরচরের ঝাউলাহাটি এলাকায় থাকেন। গতকাল দুপুর থেকে শিশুটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অভিযোগ পেয়ে ছয় ঘণ্টার মধ্যে শিশুটিকে উদ্ধার এবং জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা শোয়েব বলেন, শিশুটির বাবা সাগর পেশায় প্লাস্টিক কারখানার শ্রমিক। তাঁর (সাগরের) ভাই শাহজাহান একজন রিকশাচালক। গত মঙ্গলবার রাতে শাহজাহান কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে চোর চক্রের দুই সদস্য সুমন ও মুন্নি স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে আশ্রয়ের জন্য সাহায্য চান। শাহজাহান দুজনকে বাসায় নিয়ে আসেন। তারপর তাঁরা সাগর ও সোনিয়াকে অনুরোধ করেন, শুধু রাতে যেন বিপদগ্রস্ত দুজনকে আশ্রয় দেন। পরদিন সকালে সাগর ও তাঁর ভাই শাহজাহান কাজে চলে যান। দুপুরে সোনিয়া শিশুটিকে ঘরে রেখে রান্না করছিলেন। কিছুক্ষণ পর ঘরে গিয়ে দেখেন, শিশুটি নেই। তারপর তাঁরা র‌্যাবকে বিষয়টি জানান।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব বলছে, গ্রেপ্তার হওয়া মুন্নি ও সুমন শিশুচোর চক্রের সক্রিয় সদস্য। তাঁরা কামরাঙ্গীরচরসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাসা-বাড়ি থেকে শিশু চুরি করে থাকেন। তারপর ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার নিঃসন্তান দম্পতিদের কাছে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে ওই শিশুদের বিক্রি করেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন